ঢাকা, ||

নাশকতার পথ পরিহার করে শান্তির পথে আসুন: প্রধানমন্ত্রী


শীর্ষ সংবাদ

প্রকাশিত: ১১:৫৮ অপরাহ্ন, জানুয়ারী ৫, ২০১৫

❒ নিউজ ডেস্ক | : নাশকতার পথ পরিহার করে বিএনপিকে শান্তির পথে আসার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে তিনি বলেন, দেশের মানুষ শান্তি চায়, নিরাপত্তা চায়, চায় উন্নত জীবন।

দশম জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করা বিএনপির রাজনীতির ভুল সিদ্ধান্ত ছিল বলে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, নির্বাচনের আগে সংলাপের অনেক চেষ্টা করা হয়েছে। সংবিধানের মধ্যে থেকে যতটুকু ছাড় দেয়া সম্ভব ছিল তারজন্য প্রস্তুত ছিলাম।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্যে করে প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন করেন, আপনার ভুল রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের কারণে আজ আপনি ও আপনার দল সংসদে নেই। আপনি কাকে দোষ দেবেন? আপনার নিজেকেই দোষ দিতে হবে।

নাশকতার পথ পরিহার করে শান্তির পথে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, দেশের মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য কী কী করতে চান তা মানুষকে জানান আর নিজের দলকে গড়ে তুলুন তাহলেই হয়ত ভবিষ্যতে সম্ভাবনা থাকবে। যে পথে আপনি চলছেন তা জনগণের কল্যাণ বয়ে আনবে না। বরং মানুষের বিশ্বাস ও আস্থা আরও হারাবেন।

বিএনপির উদ্দেশ্যে শেখ হাসিনা বলেন, ৫ জানুয়ারীর নির্বাচন বানচাল করতে দেশে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করে বিএনপি-জামাত জোট ক্ষমতায় আসতে চেয়েছিল কিন্তু দেশের মানুষ তাদের সেই ষড়যন্ত্রের পাতানো ফাঁদে পা দেননি।

গত বছরের এই দিনে একটি অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের জনগণ আওয়ামী লীগকে টানা দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য সরকার গঠনের ম্যান্ডেট দিয়েছিলেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

তার সরকারের নেয়া বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের বিবরণ দিয়ে তিনি বলেন, মানুষের কল্যাণের জন্য রাজনীতি প্রতিষ্ঠা করতে চাই। দেশ খাদ্যে শিক্ষাসহ সকল ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন স্বপ্ন নয় এখন বাস্তবে।

তিনি আরও বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশনকে শক্তিশালী করা হয়েছে, দুর্নীতি কমেছে আর বাংলাদেশের গণমাধ্যম পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করছে। যুদ্ধাপরাধী, গণহত্যাকারী, রাজাকার-আলবদরদের বিচারের কাজ এগিয়ে চলছে, রায় কার্যকর করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, এই বিচার বানচাল করতে, যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করতে অন্ধকারের অপশক্তি যারা বাংলাদেশ রাষ্ট্রের অস্তিত্বে বিশ্বাস করে না, জনগণের মঙ্গল চায় না তারা আবারও ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তরের চেষ্টা করছে।

গত ২০১৩ সালের ৫ জানুয়ারির প্রেক্ষাপট তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, নির্বাচন বানচাল ও যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করতে বিএনপি-জামাত জোট সারাদেশে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল। তারা শত শত গাড়িতে আগুন দিয়েছে এবং ভাঙচুর করেছে হাজার হাজার গাড়ি। মহাসড়কসহ গ্রামের রাস্তার দুপাশের হাজার হাজার গাছ কেটে ফেলেছে। পুলিশ-বিজিবি-আনসার-সেনাবাহিনীসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ২০ জন সদস্যকে হত্যা করেছে। তাদের সহিংস হামলা, পেট্রোল বোমা, অগ্নিসংযোগ ও বোমা হামলায় নিহত হয়েছে শত শত নিরীহ মানুষ।

এদিকে বিএনপি ৫ জানুয়ারী গণতন্ত্র হত্যা দিবস হিসেবে পালন করতে না পারায় অবরোধ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে।

Top