ঢাকা, ||

শরীরে ব্যথাহীন মাংসপিণ্ড ও ক্যানসারের লক্ষণ


স্বাস্থ্য

প্রকাশিত: ৮:২৭ পূর্বাহ্ন, ডিসেম্বর ২১, ২০১৪

হেলথ ডেস্ক । : শরীরে অস্বাভাবিক কিছু দেখা গেলে অবহেলা করা হয়। অনেক সময় দেখা যায় প্রাথমিকভাবে তেমন সমস্যা নেই পরবর্তিতে সামান্য থেকে অনেকগুলো স্টেজ গড়িয়ে ক্যানসারে রূপ নেয়। বেশিরভাগ ক্যানসারের লক্ষণ থাকে। প্রথমে অনেকেই সেগুলোকে পাত্তা দিতে চান না। ক্যানসারের নির্দিষ্ট কয়েকটি লক্ষণ আছে। মূলত সেগুলিই খেয়াল রাখলে অনেক ধরনের ক্যানসার প্রথম অবস্থায় ধরা পড়ে।

ব্রেস্ট ক্যানসার: এটি মেয়েদের মধ্যে খুব বেশি দেখা যায়। ব্রেস্টে কোনও ব্যথাহীন লাম্প বা মাংসপিণ্ড তৈরি হয়। অনেকে ব্যাপারগুলো টের পেয়েও চেপে যান। এ নিয়ে সতর্ক থাকা উচিত। মাসে একবার নিজে নিজে ব্রেস্ট পরীক্ষা করলেই ব্যাপারটা বেশির ভাগ সময় বোঝা যায়। অবহেলার কারণে অনেকে সচেতন হন যখন অনেকগুলো স্টেজ পেরিয়ে যায়।
ব্যথাহীন মাংসপিণ্ড:
ব্রেস্ট ছাড়াও শরীরের যেকোনো স্থানে ব্যথাহীন মাংসপিণ্ড তৈরি হলে এবং তাতে কোনও সমস্যা না হলেও সতর্ক হতে হবে। ব্যথাহীন মাংসপিণ্ড মানেই ক্যানসার নয়। তবে আশঙ্কা থাকে। তাই অবহেলা না করে ডাক্তারের সরণাপন্ন হওয়া উচিত।
ক্যানসার থেকে আরোগ্য
প্রথম অবস্থায় ধরা পড়লে বেশির ভাগ ক্যানসারই চিকিৎসায় ভাল হয়ে যায়। দেরি হলে অনেকগুলো স্টেজও গড়িয়ে যায়। তখন ক্যানসারের উপসর্গ ছাড়া আরও অনেক ধরনের সমস্যার ক্ষেত্রেও তৈরি হতে পারে।
অন্যান্য উপসর্গ:
শরীরের কোথাও আঁচিল, টিউমার হঠাৎ করে বাড়তে শুরু করা। বা তার থেকে ব্লিডিং হওয়া। শরীরের যেকোনো জায়গা থেকে অস্বাভাবিক ব্লিডিং হলে সতর্ক হতে হবে। কোথাও ঘা হল, কিন্তু ভাল হচ্ছে না। এক্ষেত্রেও ডাক্তারের সরণাপন্ন হওয়া উচিত।
ওজন কমাও ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। ৩ থেকে ৬ মাসে যদি ১০-১৫% ওজন কমে যায়। আবার উল্টোও ঘটে। যেমন, হঠাৎ করে ভুঁড়ি বাড়তে শুরু করল।

এছাড়া দীর্ঘদিন বদহজম, ওপর পেটে ব্যথা, অ্যাসিডিটি, ঘন ঘন ডায়েরিয়া। স্টুলের সঙ্গে ব্লিডিং মানেই পাইলস নয়। সেক্ষেত্রে কোলোনোস্কপি করে দেখা দরকার। কারণ পাইলস আর ক্যানসারের লক্ষণ প্রায় একই রকম।

বয়স্কদের ক্ষেত্রে গলার আওয়াজ বদলে গেলে সতর্ক হতে হবে। গলার ক্যানসারের পূর্ব লক্ষণ হতে পারে। আর বাচ্চাদের ক্ষেত্রে জ্বর সহজে ভাল না হওয়া।

ক্যানসার এড়াতে করণীয়
ধূমপান বা মদ্যপান করা যাবে না। খুব বেশি ভাজা বা গ্রিল করা খাবার বা কাবাব জাতীয় খাবেন না খাওয়া। রেডমিট কম খাওয়া। পরিবারে কারও ক্যানসার হলে একটু বেশি সতর্ক থাকা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে কোনো সমস্যা না থাকলেও বছরে একবার স্ক্রিনিং করা উচিত। উল্লেখ্য ক্যানসার কোনোভাবেই ছোঁয়াচে নয়।

Top